1. [email protected] : adminbangladesh :
  2. [email protected] : Humayun Shamrat : Humayun Shamrat
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০১:৫৯ অপরাহ্ন
Logo

বিপুল অর্থ ঢালছে সৌদি আরব, চ্যালেঞ্জে ইউরোপের ক্লাবগুলো

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট: বুধবার, ১৯ জুলাই, ২০২৩
  • ১০৪ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ ১৬ ডেস্ক : ১৯৭৫ সালে ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবল তারকা পেলে অবসরে যাব যাব করছেন, একধরনের আধা অবসরেই ছিলেন তিনি তখন। সেই সময় তিনি উদীয়মান নর্থ আমেরিকান সকার লিগের (এনএএসএল) ক্লাব নিউইয়র্ক কসমসে যোগ দেন। তাঁর পথ অনুসরণে পরবর্তীকালে অনেক ফুটবল তারকাই ক্যারিয়ারের শেষ পর্যায়ে এনএএসএলে যোগ দেন, যাঁর মধ্যে আছেন জার্ড মুলার, জর্জ বেস্ট, ইয়োহান ক্রুইফ প্রমুখ।

দ্য ইকোনমিস্ট জানাচ্ছে, এনএএসএল ১৯৮৪ সালে বাতিল হয়, তবে ফুটবল লিগের মর্যাদা বাড়াতে এভাবে তারকা খেলোয়াড়দের ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে নিয়ে আসার রীতি বিশ্বের অনেক লিগই অনুসরণ করছে। এতে কাজও হয়েছে, যেমন জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশের ফুটবল লিগ এই কাজ করে স্থানীয় প্রতিভা বিকশিত করতে পেরেছে। আবার অনেক লিগ তা পারেনি, যেমন চীনের লিগ।

এই তালিকায় সবশেষ সংযোজন সৌদি আরব। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মতো খেলোয়াড়কে তারা লিগে খেলাচ্ছে, লিওনেল মেসিকেও অনেক চেষ্টা করেছিল তারা এই লিগে ভেড়াতে। তবে তারা ফুটবলারদের যে অঙ্কের অর্থ দিচ্ছে তাতে ইউরোপীয় ফুটবলের অর্থনৈতিক ভিত্তি নড়ে যাচ্ছে।

জুনে সৌদি আরব সরকার ঘোষণা দেয়, সরকারের সার্বভৌম সম্পদ তহবিল সৌদি লিগের ১৮টি দলের মধ্যে ৪টি দলের ৭৫ শতাংশ অংশীদারি কিনেছে। সেই দলগুলো হলো আল হিলাল, রিয়াদের আল নাসর, আল আহলি ও জেদ্দার আল ইত্তিহাদ।

সৌদি আরবের পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (পিআইএফ) ইউরোপভিত্তিক খেলোয়াড়দের দলে ভেড়ানোর কাজ সমন্বয় করছে। তারা চাইছে, উল্লিখিত চারটি দলে যেন অন্তত তিনজন করে ইউরোপীয় খেলোয়াড় অন্তর্ভুক্ত করা যায়। চারটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান আরও চারটি দলে বিনিয়োগ করেছে। পিআইএফ বলছে, এভাবে ফুটবল ক্লাবে বিনিয়োগ করার বড় উদ্দেশ্য হলো, সৌদি অর্থনীতিকে তেল থেকে সরিয়ে বহুমুখী করা; সেই সঙ্গে দেশের নাগরিকদের শারীরিক কসরতে উৎসাহিত করা।

পিআইএফ ২০২১ সালে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব নিউক্যাসেল ইউনাইটেড কিনে নেয়। এ ছাড়া ২০৩০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্যও নিলামে অংশ নেবে, সম্ভবত যৌথভাবে আয়োজনের ক্ষেত্রে তারা শক্তিশালী অংশীদার। তবে সমালোচকেরা বলেন, সৌদি আরব মানবাধিকার লঙ্ঘনে নিজের বাজে রেকর্ড থেকে মানুষের দৃষ্টি ফেরাতে এই কাজ করছে।

ইউরোপের ধনী ক্লাবগুলোর জন্যও সৌদি আরবের মতো লিগ অবশ্য কিছু ক্ষেত্রে স্বস্তির বার্তাও নিয়ে এসেছে। বুড়িয়ে যাওয়া মোটা বেতনের খেলোয়াড়দের ছেড়ে দেওয়ার জন্য আদর্শ জায়গা হয়ে উঠছে সৌদি আরবের লিগ। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে বিক্রি করতে পেরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে। চেলসিও সৌদি আরবের ক্লাবের কাছে তিনজন খেলোয়াড়কে বিক্রি করেছে।

সৌদি আরব বা মধ্যপ্রাচ্যের লিগে এই খেলোয়াড়দের ইউরোপীয় লিগের তুলনায় অনেক বেশি অর্থ দেওয়া হচ্ছে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বার্ষিক বেতন ২০ কোটি ডলার, বাণিজ্যিক চুক্তিসহ। তবে শুধু বুড়িয়ে যাওয়া খেলোয়াড়েরাই নন, ক্যারিয়ারের মধ্যগগনে থাকা খেলোয়াড়েরাও এখন সৌদি আরবের লিগে আসতে শুরু করেছেন। যেমন পর্তুগালের ২৬ বছর বয়সী রুবেন নেভেস। তিনি পর্তুগালের জাতীয় ফুটবল দলের নিয়মিত খেলোয়াড়, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের মধ্যম সারির দল উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সের অধিনায়ক ছিলেন। সৌদি আরবের ক্লাব আল হিলালে যোগ দিয়েছেন তিনি। ফলে খেলোয়াড়েরা যে এখন ক্যারিয়ারের বেশির ভাগ সময় শীর্ষ লিগে খেলতে চাইবেন, সেই ধারণায় বড় ধাক্কা লেগেছে।

তবে এর মধ্য দিয়ে নেভেস একধরনের ছাড় দিলেন বলা যায়। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন তিনি, উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগেও খেলতে পারতেন তিনি। এখন তিনি আবার ইউরোপে ফিরতে চাইলে ক্লাবগুলো তাঁর বিষয়ে অতটা আগ্রহ আর না–ও দেখাতে পারে। এমনকি পর্তুগাল দলেও তিনি স্থান হারাতে পারেন।

ক্রোয়েশিয়ার ৩০ বছর বয়সী মধ্যমাঠের খেলোয়াড় মার্সেলো ব্রোজোভিক ইন্টার মিলানের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে খেলেছেন। এরপর নতুন চ্যালেঞ্জ খুঁজতে শুরু করেন তিনি। বার্সেলোনা তাঁকে নিতে চেয়েছিল, কিন্তু সৌদি আরবের আল নাসর তাঁকে অনেক বেশি অর্থের প্রস্তাব দেয়। ফলে তিনিও সৌদি আরবে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এই পরিস্থিতিতে ইউরোপের মর্যাদাপূর্ণ ও ছোট ক্লাব সবাইকেই হয়তো খেলোয়াড় দলে টানার পরিকল্পনা নিয়ে নতুন করে ভাবতে হবে।

এখানেই শেষ নয়, সৌদি আরবের উচ্চাশার শেষ নেই। বাজারে জল্পনা আছে, তারা চ্যাম্পিয়নস লিগের বর্ধিত আসরে তাদের ক্লাবকে খেলাতে চায়; সেই সঙ্গে ইউরোপীয় সুপার লিগের ধারণার পুনরুজ্জীবন ঘটাতে চায় তারা, এমন কথাও চাউর হয়েছে।
ফলে সৌদি আরবের ফুটবল লিগ ধীরে ধীরে ইউরোপের লিগের জন্য প্রকৃত অর্থেই চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠতে পারে, এমন সম্ভাবনা প্রবল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
  1. © All rights reserved © 2023 Bangladesh16.com